(১০টি) ফেসবুক মার্কেটিং PDF Download

facebook marketing bangla book pdf ফেসবুক মার্কেটিং PDF Download

হাতেকলমে ফেসবুক মার্কেটিং কোর্স ও টিউটোরিয়াল বই PDF করে ফেসবুক মার্কেটিং কত প্রকার ও কি কি তা জানতে পারবেন। আরও জানতে পারবেন ফেসবুক কি, ফেসবুক মার্কেটিং নিয়ম, ফেসবুক মার্কেটিং কেন করবেন, গ্রুপ ও ফেসবুক পেইড মার্কেটিং। এছাড়াও আপনি অনেক ভাল পরিমাণ ফেসবুক মার্কেটিং করে আয় করতে পারবে।

ফেসবুকে নিজের প্রােফাইল তৈরি, ফেসবুকে বন্ধু (Friends) খুঁজে বের করা, ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট প্রেরণ করা, ফেসবুক অ্যাকাউন্ট ডিঅ্যাকটিভেট ও ফেসবুক অ্যাকাউন্ট তৈরি করা, অ্যাকাউন্ট সেটিংস, অ্যাকা ফেসবুকের প্রাইভেসি সেটিংস ব্যবহার করাউন্ট ডিলিট করা, টাইমলাইনে কভার পরিবর্তন করা, Facebook Ads এর প্রাইভেসি সেট করা, পােস্ট ডিলিট করা ইত্যাদি জানতে পারবেন। facebook marketing bangla book pdf ডাউনলোড করে এসব শিখে নিন।

link-

ডাউনলোড লিংক 

ফেসবুক কি? ফেসবুক সম্পর্কে ধারণা:

ফেসবুক (Facebook) হলাে বর্তমান সময়ের অত্যন্ত জনপ্রিয় একটি সামাজিক নেটওয়ার্কিং সেবা এবং ওয়েবসাইট যেটি বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তের লােকজনকে পরস্পরের সাথে আন্তঃসংযুক্ত হতে, পারস্পরিক আগ্রহগুলোকে ভাগাভাগি করতে এবং বিভিন্ন ধরনের গ্রুপে অংশ নেয়ার সুযােগ দিয়ে থাকে। ২০০৪ সালে এটি চালু হয়। সে সময়টাতে মাত্র ১৯ বছর বয়সী মার্ক জাকারবার্গ (Mark Zuckerberg) এর হাত ধরে যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাসাচুসেটস এর ক্যামব্রিজে এর গােড়াপত্তন হয়। সহ প্রতিষ্ঠাতাদের মধ্যে আছেন এডুয়ার্ডো সাভেরিন, এন্ড্রু ম্যাককলাম, ডাস্টিন মস্কোভিৎস ও ক্রিস হিউজ। বর্তমানে এর সদদপ্তর যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার মেনলােপার্ক এ অবস্থিত। ফেসবুক ইঙ্ক (Facebook, Inc.) কর্তৃক এটি পরিচালিত হয় এবং উক্ত কোম্পানিই এর স্বত্বাধিকারী। মার্ক জাকারবার্গ এই প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান এবং একইসাথে প্রধান নির্বাহী র্মকর্তা (সিইও) হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জাকারবার্গ সর্বশেষ হিসেব অনুয়ায়ী ২০১২ সালে প্রতিষ্ঠানটির আয় ছিল ৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। আর এই আয়ের উৎস হলাে ব্যানার অ্যাড, রেফেরাল মার্কেটিং, ক্যাসুয়াল গেমস ইত্যাদি । সেপ্টেম্বর ২০১৩ এর হিসেব অনুযায়ী বিশ্বজুড়ে এই প্রতিষ্ঠানটিতে ৫ হাজার ৮ শ’ এরও বেশি কর্মী কাজ করছে। ২০১৪ সালের জানুয়ারি পর্যন্ত পাওয়া হিসেব অনুয়ায়ী বিশ্বজুড়ে ফেসবুকের মাসিক সক্রিয় সদস্য সংখ্যা দাঁড়ায় ১.২ বিলিয়নেরও বেশি।

ফেসবুক (https://www.facebook.com/) ব্যবহার করতে হলে প্রত্যেককেই সাইটটিতে নিবন্ধিত হতে হয়। এর পরই তারা এটিতে ব্যক্তিগত প্রােফাইল তৈরি, অন্যান্য ব্যবহারকারী ও বন্ধুদের যুক্ত করতে এবং পারস্পরিক মেসেজ আদান- প্রদান করতে সক্ষম হন যার মধ্যে স্বয়ংক্রিয় নােটিফিকেশনও অন্তর্ভুক্ত রয়েছে যা যখন কেউ তার প্রােফাইল আপডেট করে সেটি অন্যদের জানিয়ে দেয়।

facebook earning
facebook earning

মার্কেটিং বাংলা বই pdf  – ফেসবুকের মাধ্যমে আপনি যা করতে পারবেন:

সাধারণভাবে ফেসবুক হলাে একটি বিশাল সামাজিক নেটওয়ার্ক যা এর সদস্যদেরকে একে অপরের সাথে যােগাযােগ করতে, সংযুক্ত হতে এবং একে অপরের কাজে নিযুক্ত হবার সুযােগ দিয়ে থাকে। আর এই কাজটি সরাসরি কিংবা বিভিন্ন ধরনের অ্যাপ্লিকেশন ও ফিচারের মাধ্যমে কিংবা এদের উভয়টির মাধ্যমেই ঘটে থাকে। প্রকৃতপক্ষে আমরা ওয়েবে যেভাবে কাজ করে থাকি তার ধারাটিকে যেন খানিকটা পরিবর্তন করে দিয়েছে ফেসবুক। এটি আমাদের অভিজ্ঞতাগুলােকে আরও বেশি উন্মুক্ত ও সামাজিক করে তুলছে।

ফেসবুকের মাধ্যমে একজন ব্যক্তি যা যা করতে পারেন সেগুলাের মধ্যে অন্যতম হলাে ঃ

  • ১. বিশ্বজুড়ে বন্ধুদের সাথে যুক্ত থাকতে পারবেন।
  • ২. বন্ধুদের কাছ থেকে বিভিন্ন ধরনের আপডেট ও পােস্টসমূহ দেখতে পারবেন।
  • ৩, পরিবার ও বন্ধু-বান্ধবদের সাথে ছবি ও ভিডিও শেয়ার করতে পারবেন।
  • ৪. আপনার প্রােফাইল পেইজে তথ্য শেয়ার করতে পারবেন।
  • ৫, গ্রুপ ও ইভেন্টসমূহে বন্ধুদেরকে যােগদানের আমন্ত্রণ জানাতে পারবেন।
  • ৬. অনলাইনে আছে এমন বন্ধুদের সাথে তাৎক্ষণিকভাবে চ্যাট করতে পারবেন।
  • ৭. পুরনাে বন্ধু এবং সহপাঠীদের খুঁজে বের করে তাদের সাথে নতুনভাবে সম্পর্ক সৃষ্টি করতে পারবেন।
  • ৮. মজার মজার সব অ্যাপ্লিকেশনকে চেখে দেখার সুযােগ পাবেন।
  • ৯, সােশ্যাল প্লাগইন্স এর মাধ্যমে ওয়েবজুড়ে সংযুক্ত থাকতে পারবেন।
  • ১০. বন্ধুদের সাথে গেম খেলতে পারবেন।
  • ১১. বিভিন্ন ধরনের ব্যবসা এবং সেলিব্রেটিদের সাথে যুক্ত হতে পারবেন।
  • ১২. অন্যান্য সাইটগুলাের সাথে আপনার অ্যাকাউন্টটিকে সংযুক্ত করতে পারবেন।

ফেসবুক অ্যাকাউন্ট সেটাপঃ

ফেসবুক (Facebook) ব্যবহার করতে হলে আপনাকে অবশ্যই একটি অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে হবে। আর এই অ্যাকাউন্টটি আপনি সম্পূর্ণ বিনামূল্যেই খুলতে পারবেন। এজন্য আপনার একটি ভ্যালিড ই-মেইল অ্যাড্রেস লাগবে এবং কয়েক মিনিট সময় ব্যয় করতে হবে।

ফেসবুক অ্যাকাউন্ট তৈরির ক্ষেত্রে টিপস

ফেসবুকে অ্যাকাউন্ট তৈরির সময় নিচের বিষয়গুলাের প্রতি খেয়াল রাখবেন ?  সত্যিকারের নাম ব্যবহার করুন

ই-মেইল অ্যাকাউন্ট খােলার সময় আপনি হয়তাে একটি স্ক্রিন নেম বা আপনার নিক নেম ব্যবহার করে থাকতে পারেন তবে ফেসবুকের অ্যাকাউন্ট খােলার সময় আপনার সত্যিকারের নাম দিয়ে সাইন আপ করা উচিত। আপনি ইতােমধ্যে যেসব ব্যক্তিদের চেনেন তাদের সাথে সংযুক্ত হবার জন্যই ফেসবুক। কাজেই আপনার আসল নাম দিয়ে ঐ সমস্ত ব্যক্তি আপনাকে খুব সহজেই খুঁজে বের করতে পারবেন এবং তারা আপনাকে বিশ্বাস করবেন।

পরবর্তীতে আপনি আপনার ব্যক্তিগত তথ্যাদি লুকিয়ে রাখতে পারবেন

সাইন আপ করার সময় ফেসবুক আপনার কাছে কিছু ব্যক্তিগত তথ্যাদি চাইবে যার মধ্যে আপনার লিঙ্গ, জন্মদিন এবং ই-মেইল অ্যাড্রেস অন্যতম। তবে অ্যাকাউন্ট তৈরির পর সব সময়ই আপনি আপনার সেটিংসকে পরিবর্তন করতে পারবেন। চাইলে এসব তথ্য জনসম্মুখে প্রকাশ করা বন্ধ করতে পারবেন।

ফেসবুক অ্যাকাউন্ট তৈরি করা

ফেসবুকে অ্যাকাউন্ট তৈরির জন্য নিচের পদক্ষেপগুলাে গ্রহণ করুনঃ

  • ১. আপনার ইন্টারনেট ব্রাউজারটি খুলুন (ইন্টারনেট এক্সপ্লোরার, ফায়ারফক্স, গুগল ক্রোম, অ্যাপলের সাফারি ইত্যাদি যেকোনাে ব্রাউজার ব্যবহার করতে পারেন)।
  • ২. ব্রাউজারের অ্যাড্রেসবারে www.facebook.com টাইপ করুন এবং এন্টার চাপুন।
  • ৩. নিচের মতাে ফেসবুকের লগ ইন/সাইন আপ পেইজটি প্রদর্শিত হবে। ফেসবুক ম্যানুয়াল
  • ৫. ছবিতে আপনাকে সনাক্ত করার জন্য ফেসবুক এক ধরনের ফেসিয়াল রিকগনিশন প্রযুক্তি ব্যবহার করে। তথ্য সংগ্রহের জন্য ফেসবুক আপনার ট্যাগকৃত ছবিগুলােকে ব্যবহার করতে সক্ষম যা আপনার চেহারাকে সনাক্ত করবে। বর্তমানে এই তথ্য কেবল আপলােডকৃত ছবিগুলােকে ট্যাগিংয়ে সহায়তা করতেই ব্যবহৃত হয়।
facebook earning
facebook earning

ছােটখাট ফেসবুক প্রাইভেসি

১৮ বছরের নিচের ব্যবহারকারীদের জন্য ফেসবুক বাড়তি প্রাইভেসি সুরক্ষা দিয়ে থাকে। তবে এই সুরক্ষাগুলাে খুব বেশি শক্তিশালী নয়। পাবলিক সার্চ ফলাফলে যে কেউ সাধারণ তথ্যগুলাে দেখতে পারেন। যেমন- নাম ও প্রােফাইল পিকচার যতক্ষণ পর্যন্ত না কেউ প্রাইভেসি কন্ট্রোলসমূহকে সেট করেন ততক্ষণ পর্যন্ত তার অন্যান্য ব্যক্তিগত তথ্যসমূহ যেগুলাের মধ্যে যােগাযােগের তথ্য, ছবি এবং আপডেটসমূহ- সেগুলাে তার বন্ধুবান্ধব বা বন্ধুদের বন্ধুরা দেখতে পারেন। এক্ষেত্রে অভিভাবকদেরকে অবশ্যই তার সন্তানের ফেসবুক ব্যবহারের উপর নজর রাখা উচিত এবং বাচ্চাদের প্রাইভেসি নিয়ন্ত্রণের বিষয়ে সজাগ দৃষ্টি রাখা উচিত। ১৩ বছরের নিচে কোনাে ব্যক্তি সাধারণভাবে ফেসবুক ব্যবহারের জন্য অনুমােদিত নন। এক্ষেত্রে ফেসবুকের প্রাইভেসি সম্পর্কে আরও জানতে আপনি http://www.facebook.com/safety লিংকে যেতে পারেন।

ফেসবুক প্রাইভেসি সেটিংস বেসিকস

ফেসবুকে আপনি যখন সাইন আপ (অ্যাকাউন্ট খুলেন) করেন তখন আপনার ডিফল্টভাবে আপনার প্রাইভেসি সেটিংস Public এ সেট হয়ে যায়। এর ফলে ফেসবুকের সকল ব্যবহারকারীর কাছে এবং যারা অনলাইনে আপনার নাম দিয়ে সার্চ করবে তাদের সকলের কাছে আপনি সহজলভ্য হয়ে উঠবেন। আপনি যদি ফেসবুকে আপনার ব্যক্তিগত তথ্যাদি ও কার্যক্রমসমূহকে সুরক্ষিত রাখতে চান তবে সেক্ষেত্রে আপনাকে আপনার প্রাইভেসি সেটিংসকে কাস্টোমাইজ করতে হবে। তবে তার আগে আপনাকে অবশ্যই নিচের অপশনগুলােকে বুঝতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.