মিলেনিয়াম পাবলিকেশন PDF Download (All)

Millennium publications মিলেনিয়াম পাবলিকেশন PDF Download All

মিলেনিয়াম পাবলিকেশন্স এর বই এর পিডিএফ(pdf) Download link updated এর কাজ চলছে। ওয়েট প্লিজ। Millennium publications bangladesh pdf free download –

Finance, Banking O Bima-1st Part : Finance (Solution)

ফিন্যান্স, ব্যাংকিং ও বিমা-প্রথম পত্র : ফিন্যান্স (সমাধান) pdf Download

মোঃ তবিবার রহমান

TK. 100

Macro Economics (Pass Course 2nd Years-3rd Paper)

সামষ্টিক অর্থনীতি (পার্স কোর্স দ্বিতীয় বর্ষের-৩য় পত্র pdf Download

সুকেশ চন্দ্র জোয়ারদার

TK. 258 TK. 240

Corporate Finance

কর্পোরেট অর্থায়ন pdf Download

মোঃ ফজলুল হক

TK. 458 TK. 417

Millennium BBA Suggestion-Accounting

বিলেনিয়াম বিবিএ সাজেশন্স-হিসাববিজ্ঞান pdf Download (তৃতীয় বর্ষ জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত ৭টি কলেজ)

নূরুল আমিন

TK. 300 TK. 255

Finance, Banking and Insurance - 1st Part

ফিন্যান্স, ব্যাংকিং ও বীমা – ১ম পত্র pdf Download

মোঃ তবিবার রহমান

TK. 350

Economics - Second Letter (XI and XII) (News)

অর্থনীতি -২য় পত্র pdf Download (একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণি) (নিউজ)

সুকেশ চন্দ্র জোয়ারদার

TK. 205

Accounting - 1st part

হিসাববিজ্ঞান – ১ম পত্র pdf Download

দীপক কুমার বিশ্বাস

TK. 455

Business Organization and Management-1st Part (Class XI-XII)

ব্যবসায় সংগঠন ও ব্যবস্থাপনা-১ম পত্র pdf Download(একাদশ-দ্বাদশ শ্রেণি)

মোঃ তবিবার রহমান

TK. 205

Accounting -2nd Paper (XI and XII) (News)

হিসাববিজ্ঞান -২য় পত্র pdf Download (একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণি) (নিউজ)

দীপক কুমার বিশ্বাস

TK. 476

Product Management and Marketing -Second Letter (XI and XII) (News)

উৎপাদন ব্যবস্থাপনা ও বিপপন -২য় পত্র pdf Download (একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণি) (নিউজ)

শ্যামল চন্দ্র সাহা রায়

TK. 197

Finance, Banking

ফিন্যান্স, ব্যাংকিং ও বিমা-দ্বিতীয় পত্র pdf Download (একাদশ-দ্বাদশ শ্রেণি)

মোহাম্মদ আব্দুস সালাম

TK. 230

Business Organization

ব্যবসায় সংগঠন ও ব্যবস্থাপনা-দ্বিতীয় পত্র pdf Download (একাদশ-দ্বাদশ শ্রেণি)

মোঃ তবিবার রহমান

TK. 192

Millennium BBA Suggestion-Marketing Department (2nd Year)

মিলেনিয়াম বিবিএ সাজেশন্স-মার্কেটিং বিভাগ pdf Download (দ্বিতীয় বর্ষ জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত ৭টি কলেজ)

নূরুল আমিন

TK. 430 TK. 366

Accounting -2nd Paper (XI and XII) (White)

হিসাববিজ্ঞান -২য় পত্র pdf Download (একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণি) (সাদা)

দীপক কুমার বিশ্বাস

TK. 529 TK. 481

Accounting-2nd Paper (Class XI-XII)

হিসাববিজ্ঞান-দ্বিতীয় পত্র pdf Download (একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণি)

মুহাম্মদ নাসির উদ্দিন

TK. 529 TK. 481

Economics-2nd Paper (Class XI-XII) (White)

অর্থনীতি-দ্বিতীয় পত্র pdf Download (একাদশ-দ্বাদশ শ্রেণি) (সাদা)

সুকেশ চন্দ্র জোয়ারদার

TK. 200 TK. 190

Product Management and Marketing -Second Letter (XI and XII) (White)

উৎপাদন ব্যবস্থাপনা ও বিপপন -২য় পত্র pdf Download (একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণি) (সাদা)

শ্যামল চন্দ্র সাহা রায়

TK. 215 TK. 196

Download


আরও পড়ুনঃ

বইঃ যে রাতে কাক ডেকেছিল
তরুণ লেখক কিশোর পাশা ইমন-কে অনেকেই চেনেন। অনলাইন প্ল্যাটফর্মে একটা সময় প্রচুর গল্প লিখেছেন তিনি। বাতিঘর প্রকাশনী থেকে প্রকাশিত হওয়া ‘মিথস্ক্রিয়া’, ‘মৃগতৃষা’, ‘যে হীরকখণ্ডে ঘুমিয়ে কুকুরদল’, ‘ছারপোকাঃ দ্য ব্যাটল অভ মহেন্দ্রপুর’ ও ‘জাদুঘর পাতা আছে এই এখানে’ উপন্যাসগুলো পেয়েছে বিপুল পাঠকপ্রিয়তা। মৌলিক লেখালেখির পাশাপাশি করেছেন বেশ কয়েকটা অনুবাদও। ‘যে রাতে কাক ডেকেছিল’ তাঁর মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক কাহিনি সঙ্কলন। এখানে ‘আগুনের দিন শেষ হয়নি’ নামের একটা উপন্যাসিকা সহ পাঁচটা গল্প স্থান পেয়েছে। উপন্যাসিকাটা বেশ কয়েক বছর আগে সম্ভবত রাজশাহীর হৃদি প্রকাশ থেকে প্রথম প্রকাশিত হয়েছিলো। নতুনভাবে এটা এবার এলো ভূমিপ্রকাশের ব্যানারে। যাই হোক, এই বইয়ে স্থান পাওয়া কাহিনিগুলো সম্পর্কে নিচে কিছু ধারণা দেয়ার চেষ্টা করছি।
উপন্যাসিকা – আগুনের দিন শেষ হয়নিঃ ১৯৭১ সালের এপ্রিল মাস। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার লালপুরে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর সাথে প্রবল যুদ্ধ চলছে মুক্তিবাহিনীর। মুক্তিবাহিনীর কমান্ডার হিসেবে আছেন রাজশাহী ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের (বর্তমান রুয়েট) তরুণ ছাত্র সেলিম মোহাম্মদ কামরুল হাসান। যেকোন মূল্যে তাঁরা পাকবাহিনীকে প্রতিহত করার মরণপণ চেষ্টায় রত।
ওদিকে কলকাতার অলিগলিতে হেঁটে বেড়াচ্ছেন তরুণ সাংবাদিক ও চলচ্চিত্র নির্মাতা জহির রায়হান। প্রবাসী সরকারের ভেতরের শত্রুদেরকে চিহ্নিত করার এক ভয়াবহ জেদই যেন তাঁকে ছুটিয়ে নিয়ে বেড়াচ্ছে। নিজের দেশের মানুষের ওপর পাকিস্তান সরকারের চালানো ভয়াবহ গণহত্যা নিয়ে তিনি বানাতে চলেছেন ডকুমেন্টারি ফিল্ম ‘স্টপ জেনোসাইড’। সেই সাথে দুর্নীতির আগাছা নির্মূলের মিশন তো তাঁর আছেই।
স্বাধীন বাংলাদেশের মিরপুর এলাকা, ১৯৭২ সাল। ৩০ জানুয়ারি জহির রায়হান এই এলাকায় পা রাখলেন নিজের নিখোঁজ বড় ভাই শহীদুল্লাহ্ কায়সারের খোঁজে। আর এরপর থেকেই বাংলাদেশের সমস্ত রেকর্ডে রহস্যময়ভাবে ‘নিখোঁজ’ দেখানো হয় তাঁকেও! কি ঘটেছিলো সেদিন মিরপুর ১২-তে? লেফটেন্যান্ট সেলিম আর জহির রায়হানের পথ কিভাবে এসে এক বিন্দুতে মিশেছিলো সেই ভয়াবহ অস্থির সময়ে?
প্রতিক্রিয়াঃ অসামান্য তথ্যনির্ভর উপন্যাসিকা ‘আগুনের দিন শেষ হয়নি’। এই উপন্যাসিকায় অকুতোভয় লেখক কিশোর পাশা ইমন বাংলাদেশের এমন একটা লুকানো সত্য নিয়ে নির্ভীকভাবে কথা বলেছেন, যে সত্য নিয়ে সচরাচর কোন আলোচনাই হয় না৷ এখানে একই সাথে তিনি দেখিয়েছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার লালপুরের যুদ্ধ পরিস্থিতি ও সমসাময়িক সময়ে ঘটে চলা বেশ কিছু স্পর্শকাতর রাজনৈতিক ঘটনাকে। বরেণ্য বুদ্ধিজীবী জহির রায়হান সম্পর্কেও এমন কিছু তথ্য গোচরে এসেছে, যা হয়তো উপন্যাসিকাটা না পড়লে জানাই হতো না। এটা পড়ে শেষ করার পর বহুদিন ধরে মনের ভেতরে উঁকি দিতে থাকা একটা প্রশ্ন আবারো উদয় হলো, আমরা কি সত্যিই স্বাধীন?
গল্প – অ্যাসেটঃ তরুণ মুক্তিযোদ্ধা তালহাকে ডাইভার্শন ক্রিয়েট করতে পাঠিয়েছিলো মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার তাহের। আর এই সময়টুকুর মধ্যে ওরা হাতে গোনা কয়েকজন কবজা করে নেবে গ্রামের মিলিটারি ক্যাম্প, এমনটাই ছিলো প্ল্যান। ওদিকে হানাদার বাহিনীর এক অংশ তাণ্ডবলীলা চালিয়ে যাচ্ছে গ্রামে। মুক্তিযোদ্ধাদের ওপরকার রাগ ঝাড়ছে নিরীহ বাঙ্গালীদের ওপর। এই নরকগুলজারের শেষ হওয়া দরকার। কিন্তু এর শেষটা দেখার জন্য কতো ক্যাপিটালের জীবন জুয়ায় লাগিয়ে দিতে হবে, জানে না তাহের। তবুও কি বাঁচানো যাবে অ্যাসেট-কে? অ্যাকাউন্টিংয়ের অংকের হিসেব এবার গুলিয়ে যাবে না তো?
প্রতিক্রিয়াঃ চমৎকার একটা গল্প। মুক্তিযুদ্ধকালীন সময়ের একটা খণ্ডযুদ্ধের ঘটনা তো ‘অ্যাসেট’-এ দেখানো হয়েছেই, সেই সাথে দেখানো হয়েছে একজন মুক্তিযোদ্ধাকে নিজের জীবন ছাড়াও আর কি কি বলিদান দিতে হয় সেটাও। আআশ্চর্যরকম মনখারাপ করা এই গল্পের শেষটা আবারো আমাকে মনে করিয়ে দিয়েছে কতো সহস্র স্যাক্রিফাইসের বদৌলতে আমরা আজকের এই দেশটাকে পেয়েছি।
গল্প – স্বাধীন বঙ্গে একদিনঃ যুদ্ধ শেষ হয়েছে। যুদ্ধের ক্ষত শরীরে নিয়ে দেশটা এখনো কাতরাচ্ছে। এই অবস্থায় ভারতের শরণার্থী শিবির থেকে দেশে ফিরলো হাসিব। দেশে ফিরেই দেখলো, অবস্থা খুব বেশি পাল্টেনি। আগে অত্যাচার করতো পাকিস্তানি হানাদাররা আর এখন করছে ভুঁইফোড় বাঙ্গালীরা। বন্দুক হাতে যেন সবাই সমান। এই অবস্থায় হাসিবের সাথে প্রেম হলো হিন্দু মেয়ে আকুতি’র। আর আকুতি’র দিকেই চোখ পড়েছে এক নরপশুর, তাও এই ‘স্বাধীন’ দেশেই। কি করতে পারে হাসিব?
প্রতিক্রিয়াঃ খুব ভালো লেগেছে আমার কাছে ‘স্বাধীন বঙ্গে একদিন’। মুক্তিযুদ্ধ পরবর্তী সময়ের এক চরম সত্য তাঁর এই গল্পে তুলে এনেছেন কিশোর পাশা ইমন। রক্ষকই যখন ভক্ষক হয়, তখন নিজেকেও হয়ে উঠতে হয় বেপরোয়া। গল্পের শেষটা অসাধারণ লেগেছে। মনে থাকবে গল্পটা।
গল্প – স্বাধীনতা আমিঃ রাশেদ মনেপ্রাণে পাকিস্তানের সমর্থক। গ্রামে শান্তি কমিটির চেয়ারম্যান নিজের চাচার বাড়িতে এসে পাকিস্তান আর্মির ক্যাপ্টেন আফতাব মাহমুদের সাথে পরিচয় হয় তার। শান্তি কমিটিতে যোগ দেয় রাশেদ। উঠতি বয়সী রাজাকারদের সাথে গ্রাম টহল দিয়ে বেড়ানো শুরু করে সে। এদিকে চলতে থাকে অত্যাচার ও ধর্ষণ। সবকিছুই ঘটতে থাকে রাশেদের চোখের সামনে। ওদিকে একইসাথে মুক্তিবাহিনীর বেশ কয়েকটা হাইড-আউটে হামলার প্ল্যান করছে পাকিস্তানি সেনাবাহিনী। সময় সমাগত।
প্রতিক্রিয়াঃ মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক এই গল্পটা অনেকটাই ব্যতিক্রমধর্মী। এই গল্পে মুক্তিযুদ্ধকালীন সময়টাকে দেখানো হয়েছে একজন পাকিস্তান সমর্থকের দৃষ্টিকোণ থেকে। চমৎকার লেগেছে ‘স্বাধীনতা আমি’। বিশেষ করে গল্পের শেষটা মুগ্ধ করার মতো।
গল্প – যে রাতে কাক ডেকেছিলঃ ২৫শে মার্চ, ১৯৭১। সেদিন সন্ধ্যায় নিজের গার্লফ্রেন্ড অ্যালিনের খালি বাসায় তার সাথে অভিসার সেরে হলে ফেরার পরিকল্পনা ছিলো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র ফয়সালের। কিন্তু ফজলুল হক হলে বন্ধু মতিনের সাথে দেখা করতে এসেই সে বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় কিছু পরিবর্তন টের পায়। ভারী ট্যাংক আর পাকিস্তানি মিলিটারি ভর্তি লরি হানা দেয় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের হলগুলোতে। বাদ যায় না মেয়েদের হলগুলোও। হত্যা, ধর্ষণ আর লুণ্ঠনে মেতে ওঠে পাক হানাদার বাহিনী।
প্রতিক্রিয়াঃ ২৫শে মার্চ রাতকে যেন আবারো জীবন্ত করে তুলেছেন কিশোর পাশা ইমন তাঁর এই গল্পে। সম্পূর্ণ পরিকল্পিতভাবে সেই রাতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় ছাত্র-ছাত্রীদের ওপর পাকিস্তানি হানাদারদের ঝাঁপিয়ে পড়ার চিত্রটা বড় বাস্তব ছিলো। সেই সাথে তাঁর এই গল্পে উঠে এসেছে আহমদ ইলিয়াস নামের এক উর্দুভাষী কবি’র কথা, যিনি বাঙ্গালীর নবজাগরণের পক্ষে ছিলেন।
‘লাল মাটি’ নামে আরো একটা গল্প ছিলো এই সঙ্কলনে, যেখানে আত্মত্যাগের আরেক গা শিউরানো ঘটনার দেখা পাওয়া যায়। সাম্প্রতিক সময়ে প্রকাশিত মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক বইগুলোর মধ্যে কিশোর পাশা ইমন-এর ‘যে রাতে কাক ডেকেছিল’ নিয়ে তেমন কোন আলোচনা-সমালোচনা হতে দেখিনি আমি। অথচ হওয়া উচিৎ। বইয়ের একমাত্র উপন্যাসিকা আর পাঁচটা গল্পের প্রত্যেকটাই ছিলো মনোমুগ্ধকর। ব্যক্তিগতভাবে বইটা আমি রিকমেন্ড করবো।
বইটার অসাধারণ প্রচ্ছদ করেছেন এই সময়ের অন্যতম জনপ্রিয় প্রচ্ছদশিল্পী জুলিয়ান। এটা তাঁর সেরা কাজগুলোর একটা।
‘যে রাতে কাক ডেকেছিল’ পড়ার আমন্ত্রণ রইলো।

Leave a Reply

Your email address will not be published.